প্রফেশনাল ভাবে ছেলেদের টি শার্ট কাটিং | শার্ট কাটার খুব ভাবে সব কিছু বুঝানো হয়েছে।



আমরা এই শার্টটা কাটিং করার জন্য কাপর নিয়েছি তিন হাত বহরের দের গজ কাপর।সাধারন ভাবে শার্ট বানাতে ২ হাত বহরের কাপর লাগে আড়াই গজ,আড়াই হাত বহরের ২ গজ ও তিন হাত বহরের দের গজ। দোকানদাররা সব সময় শার্টের কাপর গুলু কেটে শার্ট পিস হিসাবে তৈরী করে রাখে।আমাদের মাঝে অনেকেই রয়েছে যারা শুধু অর্ডার দিয়ে বানানো শার্ট পড়ে কখনও রেডিমেট শার্ট ব্যবহার করে না।আবার অনেকে আছে যারা শুধু রেডিমেট শার্ট ব্যবহার করে।
 
শার্ট কাটিং


ফিটিং টি শার্ট কাটিং ও মাপ।


আমাদের মাঝে অনেকেই ফিটিং শার্ট পড়ি আবার অনেকে লুজ শার্ট ব্যবহার করি।যাদের বয়স একটু বেশি তারা বেশির ভাগ মানুষ লুজ শার্ট ব্যবহার করে।আর যাদের ইয়াং বয়স তারা বেশির ভাগ ফিটিং শার্ট ব্যবহার করে। শার্ট কাটার সময় ২ ভাবে মাপ ধরা যায়।১. শার্ট কাটার সময় শরীরের ফিটিং মাপের থেকে ৪-৫-৬-৭ ইঞ্চির মত লুজ দিয়ে কাটা হয়।যত বেশি লুজ পড়ে তত বেশি বারতি ও যত বেশি ফিটিং পড়ে তত কম মাপ যোগ করে শার্ট কাটিং করা হয়।২.শার্ট কাটার সময় ফিটিং মাপে দাগ দিয়ে তারপর আরো দের ইঞ্চি বারতি দাগ দেওয়া হয় সেলায়ের মারজিন সহ।

কোন ধরনের শার্ট ভালো মানায় ফিটিং শার্ট না লুজ শার্ট। 


আমি নিজেও লুজ শার্ট ব্যবহার করি।আমার কাছে লুজ কাপর পড়তেই ভালো লাগে।লুজ বা ফিটিং কাপর ব্যবহার করা হয় প্রত্যেকের নিজের রুচির উপরে।অনেকেই আছে যাদের ফিটিং কাপর পড়লে অনেক ভালোলাগে আবার অনেকের লুজ কাপর পড়লে অনেক ভালো মানায়।

শার্টের কলার কাটিং 



Post a Comment

0 Comments

Search This Blog